বেতন-ভাতাহীন এবারের ঈদ বেরোবির শিক্ষকদের

Imageবেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের চোখে মুখে আজ শুধু হতাশা, কারণ তারা গত তিন মাস যাবত কোন বেতন পাননি। তাই ঈদের আগে বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবি জানিয়েছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। একই সাথে পূর্বঘোষিত ৭ দফা দাবির বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের শিক্ষকরা। শুক্রবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের চার নম্বর একাডেমিক ভবনে সংবাদ সম্মেলন করে এসব দাবি করেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার বলেন, ‘উত্তরাঞ্চলের মানুষের স্বপ্নের বিদ্যাপীঠ বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তিন মাস থেকে বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। এমনকি আসন্ন ঈদের আগে তাদের বোনাস পর্যন্ত পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।’ তিনি আরো বলেন, ‘এ বিষয়টিসহ সাত দফা দাবিতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করাসহ অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি পালন করে আসছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিষয়গুলোর ব্যাপারে কোনো সাড়া না পাওয়ায় আমরা উদ্বিগ্ন।’
ঈদের আগে যাবতীয় পাওনা পরিশোধসহ ৭ দফা দাবি না মানলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেন। সংবাদ সম্মেলনে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহবায়ক প্রফেসর ড. সরিফা সালোয়া ডিনা সদস্য সচিব গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও আহবায়ক কমিটির সদস্য রফিউল আজম খান তাদের ৭ দফা দাবি তুলে ধরেন।
অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম Rangpurnews24.com কে বলেন, “ঈদের আগে বেতন না পেয়ে আমাদের ঈদ এর আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে”। তিনি ঈদের আগে দ্রুত বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধের দাবি জানান।

Posted on August 15, 2013, in Uncategorized and tagged , , . Bookmark the permalink. Leave a comment.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: